শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০১:২৬ অপরাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্র আ’লীগের সংবাদ সম্মেলন : জয়ের নাম ভাঙিয়ে আজীবন সভাপতি থাকতে চান ড. সিদ্দিকুর

যুক্তরাষ্ট্র আ’লীগের সংবাদ সম্মেলন : জয়ের নাম ভাঙিয়ে আজীবন সভাপতি থাকতে চান ড. সিদ্দিকুর

হাকিকুল ইসলাম খোকন: নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে পালকি পার্টি সেন্টারে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী পরিবারের ব্যানারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে – সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের বিরুদ্ধে সজীব ওয়াজেদ জয়ের নাম ভাঙিয়ে আজীবন ক্ষমতায় থাকার লীপ্সা, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও পদ-পদবীর লোভ দেখিয়ে নিয়োগ-পদোন্নতি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ আনা হয়।(বাপস নিউজ)।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী। সংবাদ সম্মেলনের প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য ড. প্রদীপ রঞ্জণ কর। এসময় সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের গৃহীত বিভিন্ন কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রয়াত সহ-সভাপতি নজমুল ইসলাম ও মুক্তিযোদ্ধা সিরাজউদ্দিন আহমেদ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক কাজী মনিরুল হক ও বহিস্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমানের শূন্য পদ সহ অন্যান্য শূন্য পূরণের অনুমতি দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। সেই নির্দেশনা বাস্তবায়নের নামে সাধারণ সম্পাদক পদটি ছাড়া নিজের পছন্দের ৪৬ জনকে নিয়োগ-পদোন্নতি সহ কো-অপ্ট করা হয়েছে। এভাবেই দলের সভাপতি এবং যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের দেখভালের দায়িত্বে থাকা শেখ হাসিনার পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের নাম ভাঙিয়ে একের পর এক অসাংগঠনিক কর্মকান্ড চালাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মেয়াদ্দোত্তীর্ণ কমিটির সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান। উল্লেখ করা হয়, দলে অনুপ্রবেশকারি ও সুবিধাবাদী সিদ্দিকুর রহমান দলের নিয়ম-কানুন, গঠনতন্ত্র ও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের নির্দেশনা উপেক্ষা করে নিজের স্বার্থ চরিতার্থ ও অপকর্ম ঢাকার জন্য দলের নেতা-কর্মীদের পদ-পদবীর প্রলোভন দেখিয়ে যা ইচ্ছা তাই করে চলছেন। কোন নিয়ম-কানুনের তোয়াক্কা না করে দলের অনেককে পদের লোভ দেখিয়ে নিজের অপকর্ম ঢাকার চেষ্টা করছেন।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ২০১১ সালে সম্মেলনের মাধ্যমে গঠিত কমিটির মেয়াদ প্রায় ৮ বছর অতিক্রান্ত হওয়ার মূহুর্তে এবং আসন্ন সেপ্টেম্বরে সম্ভাব্য সম্মেলনের প্রক্কালে গত ২৫ জুন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ব্যাপক সংখ্যক লোক বর্তমান কমিটিতে অন্তর্ভূক্তি, পদন্নোতি ইত্যাদির মাধ্যমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র, সংগঠনের চেইন অব কমান্ড ও জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে।
ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠন হিসেবে প্রবাসে স্ব-স্ব দেশের আইন অনুযায়ী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ গঠন করেন এবং যে কোন পরিবর্তন-সংযোজন একমাত্র তার অনুমোদনক্রমে হয়ে থাকে। এছাড়া সারা বাংলাদেশের সকল কমিটির অনুমোদন একমাত্র তিনিই দিয়ে থাকেন।
দলের অভ্যান্তরে হাইব্রিড হিসেবে অনুপ্রবেশকারী ও সুবিধাবাদী সিদ্দিকুর রহমান ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন এই দলের সমস্ত নিয়ম-কানুন, গঠনতন্ত্র কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ও নির্দেশনা উপেক্ষা করে ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ করেছেন। প্রবাসে এবং দেশে যদি সকল সভাপতি একইভাবে দলের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও আজীবন ক্ষমতায় থাকার লীপ্সায় পদ-পদবীর লোভে দলের মধ্যে নিয়োগ পদন্নোতি দিতে থাকেন তাহলে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের আর কোন করণীয় থাকবে না। সিদ্দিকুর রহমান গঠনতন্ত্রের যে ধারার বর্ণনা দিয়ে এহেন ধৃষ্টতাপূর্ণ কাজ করেছেন, তা অপব্যাখ্যা হিসেবে তার বক্তব্য সম্পূর্ণরূপে প্রত্যাখ্যানযোগ্য।
৭০ বছর পদার্পণকারী ঐতিহ্যবাহী গণমানুষের রক্ত আর ঘামে গড়া বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ও প্রতিটি নেতাকর্মী কোনভাবেই এই অনিয়ম এবং অগঠনতান্ত্রিক কাজকে মেনে নেবে না। বর্তমান ৭৬ বা ৮৮ সদস্যের কমিটিতে আরও ৪০/৫০ জনকে অন্তর্ভূক্ত করে দলের নেতা-কর্মীদের চরমভাবে হতাশ ও ক্ষব্ধ করেছে। প্রশ্নোত্তর পর্বে জানানো হয়, শুণ্য পদ পূরণের নামে সহ-সভাপতি-৯, যুগ্ম সম্পাদক-৪, সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে ১৮ জনকে। সম্পাদকমন্ডলীতে নেয়া হয়েছে আরো ৫/৭ জনকে। এ সময় নির্বাহী সদস্য শরিফ কামরুল হিরা বলেন, আমাকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে না জানিয়ে। আরো অনেককে টোপ দেয়া হয়েছে পদের। ড. প্রদীপ রঞ্জণ কর অভিযোগ করেন, ছাত্রশিবির, জাগোদলের লোকজনকেও কমিটিতে নেয়া হয়েছে নিজের স্বার্থে। তিনি জানান, গতমাসে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ নিউইয়র্ক সফরকালে এক সমাবেশে জানিয়েছেন যে, সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগদানকালে সভাপতি শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও নতুন কমিটি গঠন করা হবে। কারণ বর্তমান কমিটি ইতোমধ্যেই ৮ বছর অতিবাহিত করেছে। আর এমনি অবস্থায় ৮১ সদস্যের কমিটিকে ১৩০ সদস্যে বর্দ্ধিত করার কোন প্রয়োজন ছিল না। সিদ্দিকুর রহমানের অন্যায়-অপকর্মের বিস্তারিত তথ্য হাই কমান্ডকে অবহিত করা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। জননেত্রী শেখ হাসিনাকে নিউইয়র্কে বিপুল সংবর্ধনার প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া ইউনিয়ন স্কোয়ারে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন করা হবে ব্যাপকভাবে। সেপ্টেম্বরে সভাপতির উপস্থিতিতে নতুন কমিটি গঠিত হলে সে কমিটিই বিপুল উৎসাহে উদযাপন করবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী। বাণিজ্য সম্পাদক মিসবাহ আহমেদ, শিক্ষা সম্পাদক এম এ করিম জাহাঙ্গির অভিযোগ করেন, সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান নিজের অসাংগঠনিক কর্মকান্ড অব্যাহত রাখার মতলবে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগে বিবাদ লাগিয়েছেন। বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য কমিটি গঠনের নামে করা হচ্ছে চাঁদাবাজি।
সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দের আরও যারা উপস্থিত ছিলেন তারা হলেন যথাক্রমে: উপদেষ্টা হাকিকুল ইসলাম খোকন, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক ফরিদ আলম, আইন সম্পাদক এডভোকেট শাহ বখতিয়ার, আওয়ামীলীগ নেতা কায়কোবাদ খান, জালালউদ্দিন জলিল, হেলাল মাহমুদ, জগলুল ইসলাম, ইলিয়ার রহমান, মাশুক আহমেদ, মিজানুর রহমান, আক্তার হোসেন, শফিকুল ইসলাম, মনজুর চৌধুরী, যুবলীগ নেতা জামাল হুসেন, সেবুল মিয়া প্রমুখ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877