শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১২:৩০ অপরাহ্ন

দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী দেওয়ানজী দীঘি বিলুপ্তির পথে………..!

দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী দেওয়ানজী দীঘি বিলুপ্তির পথে………..!

স্বদেশ ডেস্ক: প্রায় দু’শ বছরের পুরোনো দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী দেওয়ানজী দীঘিটি হারিয়ে যেতে বসেছে। মাটি ভরাট করে স্থাপনা নির্মাণ ছাড়াও পাড়ের গাছ কেটে সাবাড় করা হয়েছে। মাছ চাষের নামে দূষণ করা হচ্ছে পানি। এতে জীব-বৈচিত্র্য বিনষ্টের পাশাপাশি বিপর্যয় নেমে এসেছে পরিবেশের। জনসাধারণের ব্যবহার্য্য এ দীঘিটি একটি প্রভাবশালী মহল গ্রাস করার অপচেষ্টায় লিপ্ত বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। স্থানীয় প্রশাসন বলছে, পুকুরটি সাধারণের ব্যবহারের এবং প্রভাবশালী মহল মাটি ভরাট করে যে স্থাপনা নির্মাণ করছে, তা বন্ধের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এনিয়ে আদালতে মামলারও আশ্রয় নিয়েছে স্থানীয় এলাকাবাসী। এদিকে স্থানীয় মাদ্রাসা, এতিমখানা ও ঈদগাঁ মাঠ কমিটির নেতাদের নেতৃত্বে এলাকাবাসী সম্প্রতি ঐতিহ্যবাহী দেওয়ানজী দীঘিতে আনুষ্ঠানিকভাবে মৎস্যপোনা অবমুক্ত করেছেন। এ সময় স্থানীয় এলাকাবাসী মো. আফসার আলী জানান, জনগণের পুকুরে জনসাধারণ মাছ ছেড়েছে। এ মাছ বড় হলে মাদ্রাসা, এতিমখানার শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী খাবে। কেউ ব্যক্তিস্বার্থ হাসিল করতে যাতে না পারে এজন্য এলাকাবাসী সতর্ক রয়েছে।
দিনাজপুরের বিরল উপজেলার ফরক্কাবাদ মৌজার জেএলনং-১৪২ এর সিএস ৬৪৯ খতিয়ানের ২৮২৭ দাগের ৬ দশমিক ৯ একর পুকুরপাড়, ২৮২৮ দাগে ৫ দশমিক ৪১ একর পুকুর এবং ২৮২৭/৩০৯৯ দাগে ১ দশমিক ৬ একর ডাঙ্গা রয়েছে। জলভাগ এবং পাড়সহ প্রায় ১১ একর আয়তনের বিশাল আকারের দেওয়ানজী দীঘি। দিনাজপুর বিরল উপজেলার ফরক্কাবাদ ইউনিয়নে অবস্থিত এই পুকুর পাড়ের অধিকাংশ গাছ কেটে বেশকিছু জলভাগ অংশ মাটি দিয়ে ভরাট করায় পরিবেশ বির্পযয়সহ পানি সংকটের আশংকা করছে এলাকাবাসী। এলাকার জহিরুল ইসলাম, নূরুল ইসলাম, স্বপন চন্দ্র শীলসহ অনেকের অভিযোগ একটি প্রভাবশালী মহল তা আত্মসাতের অপচেষ্টা করছে। ইতিমধ্যে পুকুর পাড়ে গড়ে উঠেছে বেশকিছু দালান বাড়ি ও স্থাপনা। দেখা গেছে, পুকুরে নেই আগের সেই বৈচিত্র্য। বদলে গেছে প্রাকৃতিক পরিবেশ। নেই দেশি মাছ, শামুক, শাপলা-পদ্মসহ নানান প্রজাতির জলজ উদ্ভিদ। স্থানীয় আমিরুল ইসলাম, আব্দুল গফ্ফার ও মেহেরাব আলী জানান, আগে প্রতিবছর শীতকাল এলেই নানা রং-বেরঙের নাম জানা-অজানা পাখির সমাগম ঘটতো দেওয়ানজী দীঘিতে। অতিথি পাখির বিচরণের চোখ-ধাঁধানো দৃশ্য মানুষের নজর কাড়তো। পুকুরে ঝাঁকে ঝাঁকে এ পাখিগুলো নামতে দেখা যেত। বর্ণিল সব অতিথি পাখির কলতানে মুখরিত হয়ে উঠতো প্রকৃতি ও পরিবেশ। একটি প্রভাবশালী মহলের করাল গ্রাসে এখন সব হারিয়ে গেছে-এলাকাবাসীর এমনটাই অভিযোগ। জীব-বৈচিত্র্য এবং পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় এই ঐতিহ্যবাহী দেওয়ানজী দীঘি দূষণ ও দখলমুক্ত জরুরি হয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে সরকারের যেমন দৃষ্টি দেয়া প্রয়োজন তেমনি প্রয়োজন জনসচেতনার, এমনটাই তাগিদ দিচ্ছেন পরিবেশবিদরা।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877