সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০৮:১৩ অপরাহ্ন

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে ধর্ষণ

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে ধর্ষণ

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে চারুকলা ইনস্টিটিটিউটের লাইব্রেরিতে এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের ১৬তম ব্যাচের ছাত্র পাপ্পু কুমারের বিরুদ্ধে। তবে পাপ্পুর রাজনৈতিক প্রভাব প্রতিপত্তির কারণে ধর্ষিতার পরিবার ভয়ে কোনো আইনি পদক্ষেপ নিতে পারছেন না বলে জানা গেছে।

গত ৩ জুলাই ধর্ষণের ঘটনা ঘটার পর থানায় গিয়েও মামলা না করে ফিরে আসে ধর্ষিতের পরিবার। তবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানান তারা। মামলা না করার কারণ জিজ্ঞাসা করা হলে এই প্রতিবেদকের কাছে ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, তারা মামলার ব্যাপারে কোনো কথা বলতে চায় না।

এদিকে, অভিযুক্ত ছাত্র পাপ্পুর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী নির্যাতন বিরোধী কমিটি পাপ্পুর বিরুদ্ধে এরইমধ্যে তদন্ত সম্পন্ন করেছে। তার বিরুদ্ধে যথাযথ একাডেমিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রবিষয়ক পরিচালক অধ্যাপক শরীফ হাসান লিমন জানান, ধর্ষণের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী নির্যাতন বিরোধ কমিটি তদন্ত সম্পন্ন করেছে। খুব শিগগিরই পাপ্পুর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অভিযুক্ত পাপ্পু কুমার খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার বাসিন্দা এবং বঙ্গবন্ধু পাঠক ফোরাম খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি।

প্রসঙ্গত, গত ৩ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদে চিত্রকলা প্রদর্শনী ছিল। পাপ্পু প্রদর্শনী দেখানোর নাম করে ওই মেয়েকে ডেকে নিয়ে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে চারুকলার লাইব্রেরিতে নিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। রাত আড়াইটার দিকে মেয়েটি চারুকলার লাইব্রেরির সিড়িতে কান্নাকাটি করার সময় দারোয়ান তাকে দেখতে পায়। পরে ধর্ষিতের পরিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রবিষয়ক পরিচালক বরাবর পাপ্পুর শাস্তি দাবি করে আবেদন করেন। ঘটনার পর গত ১৫ জুলাই পাপ্পু বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলে ছাত্ররা তাকে মুখে কালি লাগিয়ে গলায় জুতার মালা ঝুলিয়ে ক্যাম্পাস থেকে বের করে দেয়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877