সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:১১ অপরাহ্ন

দেখবো এবার জগৎটারে : পর্ব-১ : সূর্যোদয়ের দেশ জাপান

দেখবো এবার জগৎটারে : পর্ব-১ : সূর্যোদয়ের দেশ জাপান

অনুচয়নেঃ কাজী কাসেম:

বাংলাদেশের সুদূর প্রতিবেশী দেশ জাপান। জাপানের পূর্ব প্রান্তে সুবিশাল জলরাশি প্রশান্ত মহাসাগর। এই মহাসাগরের অপর পারে কোন স্থল ভূমি আছে কিনা তা প্রাচীন আমলের মানুষদের নিকট জানা ছিলনা। আধুনিক দুনিয়ার বিজ্ঞান মনস্ক মানুষেরা এর বিশাল জলরাশির আদি অনন্ত জেনে ফেলছে। এই বিশাল জলরাশির পরিধি ৬০ মিলিয়ন স্কয়ার মাইলের অধিক।  বিশাল এই জলাধারের মোট পানির পরিমাণ ৭১০,০০০,০০০ কিউবিক কিলোমিটার। এই বিশাল জলাধারের পশ্চিম পাশের  ছোট বড় ৪০০০ হাজার দ্বিপ নিয়ে গঠিত এই দেশটি।জাপানীরা এই ভূখণ্ডের নাম দিয়েছে ‘নিপ্পন’। জাপানি ভাষার ‘নিপ্পন’ শব্দটির বাংলা অর্থ সূর্যোদয়ের দেশ। জাপানী রূপকথা অনুযায়ী সৃষ্টি কর্তা ভূপৃষ্ঠে এই দেশটি নিজহাতে স্থাপন করেছে। চার হাজার দ্বীপ নিয়ে গঠিত এই দেশটির প্রধান দ্বীপমালার মধ্যে হোন্সু, খুসু,শিকোকু ও হোককায়ডো। দেশের ১২৪ মিলিয়ন মানুষের অধিকাংশ মানুষ সর্ব বৃহৎ দ্বীপ হোন্সুতে বাসবাস করে। এই দ্বীপের  চার ভাগের প্রায় তিন ভাগ জুড়ে অসংখ্য পর্বত মালা ছড়িয়ে ছিটেয়ে আছে। এই সকল পর্বত মালার পাদদেশে গভীর বনভূমি বিদ্যমান। এই দেশটি জীবন্ত আগ্নেয়গিরির সংখ্যা প্রায় ৬৭।প্রায় প্রতি পাঁচ বছর পরপরই এখানে ভূমিকম্প হয়। গ্রীষ্ম কালের শেষ ভাগে প্রায়ই টাইফুন নামের সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাস হয়। দেশটির দক্ষিণের দ্বীপ গুলিতে গ্রীষ্ম কালে প্রচণ্ড গরম ও আদ্রতা থাকে। উত্তর সীমানার হোক্কাইডো দ্বীপটিতে  শীত কালে তীব্র ঠান্ডা। এ সময় সমুদ্রের পানীও বরফ হয়ে যায়।

জাপানের মোট কৃষি উপযোগী ভূমির প্রায় অর্ধেক পরিমাণ ভূমিতে ধানের আবাদ করা হয় ব্যক্তি মালিকানার ছোট ছোট কৃষি খামারে। বাংলাদেশ সহ দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার প্রায় সকল দেশের মতই ভাত জাপানীদের প্রধান খাদ্য।সেই হিসাবে বাংলীদের মত জাপানিদেরও বলা যেতে পারে ভেতো জাপানী। ভেতো হলেও জাপানীরা কিন্তু ভীষণ কর্ম পটু।নারী-পুরুষ  জাপানীরা কিন্তু পথে হাটেনা-ওরা দৌড়ায়।

বিশাল ভূখণ্ডের জাপান দেশটির মধ্যভাগে অবস্থিত দেশের রাজধানি টোকিও নগর। প্রায় ১২ মিলিয়ন মানুষের বাস এই নগরীতে। ১৯২৩ সালের প্রচণ্ড ভূমিকম্পে এই টোকিও নগরীর অনেক কিছু ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। দ্বিতীয় মহাযুদ্ধের সময় মিত্র বাহিনীর অন্যতম সদস্য আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের আনুবিক বোমায় এই নগরী প্রায় ধংশ হয়ে গিয়েছিল। কর্মপটু জনগণের প্রবল চেষ্টায় এই প্রায় ধ্বংস প্রাপ্ত স্থানটিতে গড়ে উঠেছে  বিস্ময়কর  এক আধুনিক নগরী। (চলবে)-

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877