রবিবার, ১৬ Jun ২০২৪, ০২:০৮ পূর্বাহ্ন

শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

স্পোর্টস ডেস্ক: শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ভারতকে ১৮ রানে হারিয়ে ফাইনালে নিউজিল্যান্ড।

বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২৪০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে ভারত। দলীয় ৫ রানের মধ্যে ফিরে যান দলের কিন টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুল। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ম্যাট হেনরির দুর্দান্ত ডেলিভারতি টম লাথামের হাতে তালুবন্দী হয়ে ফেরেন রোহিত শার্মা।

তৃতীয় ওভারে ট্রেন্ট বোল্টের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে কোহলি যখন ফিরে যান দলের রান তখন ৫। রিভিও নিয়েও বাঁচতে পারেননি ভারতীয় অধিনায়ক।

চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে পেসার হেনির দ্বিতীয় আঘাত হানেন। এবার তার শিকার ওপেনার লোকেশ রাহুল। উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছেন তিনি। ভারতের রান তখনও ৫।

রোহিত, কোহলি, রাহুল প্রত্যেকের ব্যাট থেকে আসে ‘এক’ রান করে।

তিন টপ অর্ডার হারিয়ে চাপে পড়া ভারতকে ম্যাচে ফেরানোর চেষ্টা করেন ঋষভ পান্ত ও দিনেশ কার্তিক। ডিফেন্সিভ খেলতে থাকা কার্তিক দলীয় ২৪ রানে হেনরির তৃতীয় শিকার হলে ভারত পড়ে যায় কঠিন চাপে। ২৫ বলে ৬ রান করে নিশামের দুর্দান্ত ক্যাচে ফেরেন তিনি।

পঞ্চম উইকেটে পান্ত ও হার্দিক পান্ডিয়া দেখে-শুনে খেলার চেষ্টা করলেও মিচেল স্যান্টনারের দ্বিতীয় ওভারের পঞ্ম বলে ওভার বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে সীমানার কাছে গ্রান্ডহামের তালুবন্দিতে ফেরেন পান্ত। ৫৬ বলে ৩২ রান আসে তার উইলো থেকে।

৭১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে অনেকটাই খেলা থেকে ছিটকে পড়ে ভারত।

৯২ রানের মাথায় পান্ডিয়ার উইকেটটি খোয়ালে মনে হচ্ছিলো ভারত হারের খাদে পড়ে গেছে। কিন্তু ভারত বলে কথা। তখনও যে মাঠে ছিলেন বিশ্ব সেরা ‘ফিনিশার’ মহেন্দ্র সিং ধোনি।

দেখে-শুনে খেলে রবীন্দ্র জাদেজাকে নিয়ে খেলা জমিয়ে তুলেন। ৫৬ বলে জুটিতে পূর্ণ করেন ৫০ রানের পার্টনারশিপ। জাদেজা ছড়ি ঘুরাতে থাকেন একটু বেশিই। হেসে-খেলে মাত্র ৩৯ বলে ক্যারিয়ারের ১১তম অর্ধশতক তুলে নেন তিনি।

ভারতকে খেলায় ফেরানো জাদেজা ২০৮ রানের মাথায় বোল্টের বলে উইলিয়ামসনের ক্যাচে আউট হলে তখন ভারতের প্রয়োজন লাগে ১৩ বলে ৩২ রান। ৫৯ বলে ৪ বাউন্ডারি ও চার ছক্কায় ৭৭ রান করেন জাদেজা।

নিউজিল্যান্ড বোলারদের মধ্যে ম্যাট হেনরি ৩টি, মিচেল স্যান্টনার ২টি, ট্রেন্ট বোল্ট একটি করে উইকেট শিকার করেন।

মঙ্গলবার যেখানে থেমেছিল ম্যাচ সেখান থেকেই আবার শুরু হলো আজ। নিউজিল্যান্ডের ইনিংসে ৩ ওভার ৫ বল বাকি থাকতে আগের দিন থেমেছিল খেলা। তাদের সংগ্রহ ছিলো ৫ ‍উইকেটে ২১১ রান।

বুধবার খেলা শুরুর পর অবশিষ্ট ২৩ বলে ২ উইকেট হারিয়ে ২৮ রান তুলেছে কেন উইলিয়ামসনের দল। ফলে তাদের সংগ্রহ দাড়িয়েছে ৮ উইকেটে ২৩৯ রান। ভারতকে জয়ের জন্য করতে হবে ২৪০। হাতে ৫ উইকেট থাকার পরও বেশি রান তুলতে না পারার জন্য ভারতের ভালো ফিল্ডিং ও নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা দায়ী।

আগের দিন অপরাজিত থাকা রস টেইলর এদিন রবীন্দ্র জাদেজার সরাসরি থ্রোতে রান আউট হয়েছেন ৪৮তম ওভারের শেষ বলে । ৯০ বলে ৭৪ রানে থেমেছে তার ইনিংস। পরের ওভারের প্রথম বলে বাউন্ডারি দুর্দান্ত এক ক্যাচে টম লাথামকে ফিরিয়েছেন আবারো সেই রবীন্দ্র জাদেজা। বোলার ছিলেন ভূবনেশ্বর কুমার। একই ওভারের শেষ বলে নিকোলাস হেনিরকেও তুলে নিয়েছেন ভুবি। সব মিলে তিনি ৪৩ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। ফলে নিউজিল্যান্ড স্লগ ওভারে যে গতিতে রান তোলার আশা করেছিল তা পারেনি।

এবারের বিশ্বকাপের লিগ পর্বে ৯ ম্যাচের ৮টিতে হেরে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থেকে সেমিফাইনালে এসেছে নিউজিল্যান্ড। অন্য দিকে নিউজিল্যান্ড এসেছে অনেকটা ভাগ্যের জোরে। ফেবারিট ভারতের বিপক্ষে তাদের গ্রুপ পর্বের ম্যাচটি বাতিল হয় বৃষ্টির কারণে। যে কারণে সেখান থেকে একটি পয়েন্ট পায় কিউইরা। যেটি তাদের সেমিফাইনালে নিয়ে গেছে।

মঙ্গলবার ২০১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের প্রথম সেমিফাইনালে ম্যানচেস্টার ওল্ড ট্রাফোর্ডে টস জিতে ভারতের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় নিউজিল্যান্ড। টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোচট খায় কিউইরা। ওপেনিং ব্যাট করতে আসেন মার্টিন গাপটিল ও হেনরি নিকোলস।

দলীয় প্রথম রানের দেখা পায় ১৭ বলের মাথায়। আর ৩.৩ ওভারের মাথায় ১৭ বলে ১ রান করে সাজ ঘরে ফেরেন গাপটিল। দলপতি ক্যান উইলিয়ামসন নিকোলসকে নিয়ে প্রাথমিক চাপ সামলে খেলার চেষ্টা করেন। এর ফলে উইকেট বাঁচাতে গিয়ে রানের দিকে নজরই দিতে পারেননি কিউইরা।

রক্ষণাত্মক খেলতে থাকা নিউজিল্যান্ড প্রাথমিক চাপ কাটিয়ে রানে ফিরতে চাইলেও ১৮.২ ওভারে হেনরি নিকোলাস ৫১ বল খেলে ২৮ রানে আউট হলে ভয়টা আরও চেপে বসে নিউজিল্যান্ডের উপর। ৩৫.২ ওভারে উইলিয়ামসন ৯৫ বলে খেলে ৬৭ রানের মাথায় চাহালের বলে জাদজার হাতে ক্যাচ দিযে সাজ ঘরে ফেরেন।

এরপর জেমস নিশামের ১৮ বলে ১২ ও কলিন ডি গ্রান্ডহোম ১৬ বলে ১০ রান করে আউট হলে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে কিউইরা। ৪৫ ওভারে দলীয় ২০০ রানের মাথায় কলিন ডি গ্রান্ডহোম আউট হলে ব্যাটিংয়ে নামেন উইকেটকিপার কাম ব্যাটসম্যান টম লাথাম।

রস টেইলর একপ্রান্ত আগলে রেখে খেলতে থাকেন। ৪৬.১ ওভার পর বৃষ্টিতে ম্যাচটি বন্ধ হয়ে যায়। ৬৭ রান করে অপরাজিত আছেন টেইলর। ৩ রানে অপরাজিত আছেন টম ল্যাথাম।

ভারতের হার্দিক পান্ডিয়া ১০ ওভারে ৫৫ রান দিয়ে একটি, রবীন্দ্র জাদেজা ১০ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে একটি আর যুভেন্দ্র চাহাল ১০ ওভারে ৬৩ রান দিয়ে একটি উইকেট তুলে নেন। ভুবনেশ্বর কুমার ৮.১ ওভারে ৩০ রান দিয়ে একটি উইকেট পান। আর জাসপ্রিত বুমরাহ ৮ ওভারে ২৫ রান দিয়ে তুলে নেন একটি উইকেট।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877