শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১২:৪৭ অপরাহ্ন

লাইফ সাপোর্টে এরশাদের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ঠিকভাবে কাজ করছে না : জিএম কাদের

লাইফ সাপোর্টে এরশাদের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ঠিকভাবে কাজ করছে না : জিএম কাদের

স্বদেশ ডেস্ক: ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন সাবেক রাষ্ট্রপতি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। সাবেক রাষ্ট্রপতির প্রায় সব অঙ্গপ্রত্যঙ্গ অচল হয়ে আসছে। তার অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ঠিকভাবে কাজ করছে না। এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে এরশাদকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। এরশাদের রোগমুক্তির জন্য তার স্ত্রী জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান এবং বিরোধীদলীয় উপনেতা বেগম রওশন এরশাদ দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

বৃহস্রাপতিবার রাতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে জিএম কাদের আরও একদফা গণমাধ্যমকর্মীদের এরশাদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতির প্রায় সব অঙ্গপ্রত্যঙ্গ অচল হয়ে আসছে। তার অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ঠিকভাবে কাজ করছে না। অনেকে গুজব ছড়ানোর চেষ্টা করছে। তাতে শুভাকাঙ্ক্ষীরা বিভ্রান্ত হচ্ছে। তাৎক্ষণিকভাবে দেশবাসীকে জানাতে আমরা সংবাদ সম্মেলন করছি। দেশবাসীকে বলছি, খবর আমরাই দেব।

এদিকে এরশাদের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু জানান, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এরশাদের অবস্থার অবনতি হয়। চিকিৎসকরা বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে তাকে লাইফ সাপোর্ট দেন।
এরআগে বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটায় এরশাদপত্মী জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান এবং বিরোধীদলীয় উপনেতা বেগম রওশন এরশাদ এবং জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের আইসিইউতে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে দেখতে যান। এসময় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি, সুনীল শুভরায়, মেজর (অব.) খালেদ আকতার, আলমগীর সিকদার লোটন, যুগ্ম মহাসচিব এসএম ইয়াসিরসহ জাতীয় পার্টির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে দুপুর ২টার দিকে এরশাদকে দেখে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের আইসিইউ থেকে বের হয়ে তার স্ত্রী রওশন এরশাদ বলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের শারীরিক অবস্থা সংক্রান্ত সব প্রতিবেদন সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছে পাঠানো হয়েছে। ডাক্তাররা কী মতামত দেয় সেটার উপর নির্ভর করে আমরা দেখব, অন্য কিছু করা যায় কি না। এখানকার ডাক্তাররা যতœ সহকারে চিকিৎসা করেেছন, তারা সর্বোতভাবে চেষ্টা করছেন। তিনি বলেন, ওনার (এরশাদ) রক্তের একটা সমস্যা ছিল, সে সমস্যাটার সঙ্গে বয়স দুটো মিলে অনেক বেশি কমপ্লিকেশন হয়ে যাচ্ছে। এখন আস্তে আস্তে সব অর্গানগুলো উইক হয়ে যাচ্ছে। ডাক্তাররা সর্বোতভাবে চেষ্টা করেছেন’। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জন্য নেতাকর্মী ও দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়ে তিনি বলেন, এখন সব তোমরা ওনার জন্য দোয়া করবা। বিশেষ করে রংপুরবাসী আরও বেশি দোয়া চাইবা। সবাই মিলে দোয়া করবা। সব কিছু তো আল্লাহর হাতে, আল্লাহ ইচ্ছা করলে আবার পুনর্জীবিত করতে পারেন মানুষকে। এখন সবকিছু আল্লাহর হাতে।

বেগম রওশন এরশাদের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেন। তিনি শুক্রবার দেশের সব মসজিদ, মন্দির, গির্জা, প্যাগোডাসহ ধর্মীয় উপসনালয়ে এরশাদের রোগমুক্তি এবং সুস্থতা কামনায় দোয়া করতে অনুরোধ জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরেরও জাতীয় পার্টির বনানী অফিসে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা নিয়ে ব্রিফ করেন তার ভাই ও পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদের। তিনি বলেন, গত চার দিন ধরে এরশাদের শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত, বিদেশে নেয়ার অবস্থা নেই। তবে উন্নতির আশা করছেন চিকিৎসকরা। তিনি বলেন, এরশাদের শারীরিক অবস্থার লক্ষণ ‘শুভ নয়’। ফুসফুস ও কিডনির সংক্রমনের উন্নতি যতটা হওয়ার কথা ছিল, ততটা হয়নি। ফলে সিঙ্গাপুরে নেওয়ার মতো শারীরিক অবস্থা নেই এরশাদের। আর সিঙ্গাপুর নেয়া হলেও এরশাদের উপকার হবে কি না তাতে ‘সন্দেহের অবকাশ’ রয়েছে।

জিএম কাদের বলেন, (এরশাদের) অবস্থা অবনতির দিকে যাচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে অনেক সমস্যা দেখা দিচ্ছে। বার্ধক্যজনিতকারণে এটা হচ্ছে। ওনার সিস্টেমে আগেই সমস্যা ছিল। দোয়া করা ছাড়া আমাদের কিছু করার নেই’। চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, চিকিৎসকদের প্রত্যাশা অনুযায়ী তার শারীরিক উন্নতি হচ্ছে না। তবে, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) চিকিৎসকরা সাবেক রাষ্ট্রপতিকে বিশ্বমানের চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন।

জিএম কাদের বলেন, সিএমএইচের চিকিৎসকরা দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেই এরশাদের চিকিৎসা দিচ্ছেন। চিকিৎসকরা মনে করলেই তাকে বিদেশে নেয়া হবে, অথবা বিদেশ থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডাকা হবে। তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের ফুসফুসের সংক্রমণ প্রত্যাশা অনুযায়ী কমছে না। প্রয়োজন অনুযায়ী কিডনীও কাজ করছে না। এ কারণে তার শরীরে কিছুটা পানি জমেছে। কিন্তু, সিএমএইচের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। এরশাদকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের আশু রোগমুক্তি কামনায় আজ শুক্রবার সারাদেশে মসজিদ, মন্দিরসহ সকল ধর্মীয় উপাসনালয়ে প্রার্থনার আয়োজন করার জন্য জাতীয় পার্টির সকল পর্যায়ের নেতা কর্মীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

প্রসঙ্গত. গত ২২ জুন বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসভবনে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে দ্রুত সিএমএইচে নেয়া হয়। ৯১ বছর বয়সী সাবেক সামরিক শাসক এরশাদ দীর্ঘদিন রক্তের মাইলোডিসপ্লাস্টিক সিনড্রোমে ভুগছেন। তার অস্থিমজ্জা পর্যাপ্ত হিমোগ্লোবিন উৎপাদন করতে পারছে না। এরআগে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এরশাদের রক্তে হিমোগ্লোবিনের সমস্যা ধরা পড়ে। দুই দফায় সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নিয়ে এলেও তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়নি। এই দফায় সিএমএইচে ভর্তি হলে এরশাদের ফুসফুস ও কিডনিতে সংক্রমণ ধরা পড়ে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877