শনিবার, ১৩ Jul ২০২৪, ১০:১৬ অপরাহ্ন

বিদ্যালয় মাঠে গরুর হাট…..?

বিদ্যালয় মাঠে গরুর হাট…..?

স্বদেশ ডেস্ক: বিদ্যালয়ে ক্লাস চলছে। পাঠদানরত শিক্ষক বলছেন এবং ব্ল্যাক বোর্ডে লিখে যাচ্ছেন। শিক্ষার্থীরা সেই পাঠ গ্রহণের চেষ্টা করছে। কিন্তু কতটুকু পাঠ আত্মস্থ করতে পারছে শিক্ষার্থীরা তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। কারণ বিদ্যালয়ের মাঠে বসে গরু-ছাগলের হাট বসেছে। ক্রেতা-বিক্রেতাদের দর-কষাকষি আর গরু-ছাগলের চিৎকারে শিক্ষায় মনোযোগ দেওয়ার পরিবেশ থাকে না। এক বিশ্রী পরিবেশ। ফলে অমনোযোগী হয়ে পড়ছেন শিক্ষার্থীসহ শিক্ষকরাও। দৃশ্যটি পটুয়াখালীর কলাপাড়ার লালুয়া ইউনিয়ন পরিষদের সামনে হাটখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, লালুয়া ইউনিয়নের বানাতিবাজারে নির্দিষ্ট গরুর হাট রয়েছে। সেই মাঠে বর্ষায় জলাবদ্ধতা তৈরি হওয়ায় সেখানে হাট বসাতে না পারায় ইউনিয়ন পরিষদের সামনে হাটখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠেই বসানো হয়েছে গরু-ছাগলেরর হাট। অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় তহশিল অফিসের সহযোগিতায় বর্তমান ইজারাদার এই গরুর হাট বসিয়েছেন। একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, প্রতি সোমবার গরু-ছাগলের হাট বসে। গরু-ছাগলের ভিড় ঠেলে মাঠ পার হয়ে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে হয়। হাটবারে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠটি গোবর আর কাদায় একাকার হয়ে যায়। শিক্ষার্থীরা সেখানে খেলাধুলা তো দূরে থাক চলাচলই করতে পারে না। বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সবুজ প্যাদা জানান, প্রধান শিক্ষক ও ইজরাদারকে গরুর হাট না বসানোর জন্য অনুরোধ করি। বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যানকে অবহিত করা হয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল জানান, স্থানীয় তহশিলদার ইজারাদারের মাধ্যমে হাট কালেকশন করে থাকেন। চেয়ারম্যানের মাধ্যমে আশ্বস্ত করা হয়েছে আগামী সপ্তাহ থেকে এখানে আর হাট বসানো হবে না। লালুয়া ইউপি চেয়ারম্যান শাখাওয়াত হোসেন তপন বিশ্বাস জানান, বিদ্যালয়ের সামনে গরু-ছাগলের হাট না বসানোর জন্য তহশিলদারসহ ইজারাদারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877