শনিবার, ১৩ Jul ২০২৪, ১০:০২ অপরাহ্ন

ওই দেখা যায় আশার আলো

স্বদেশ ডেস্ক: অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারের পর বাংলাদেশের সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্ন অনেকটাই ফিকে হয়ে গেছে। আরও পরিষ্কার করে বললে, টাইগারদের সম্ভাবনা খুবই কম। তবে সামনে আরও তিন ম্যাচ বাকি আছে। এটাই আশার আলো দেখাচ্ছে মাশরাফিকে। বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তাই এখনই হাল ছাড়ছেন না। বলছেন, সামনে কী ঘটবে, তা এখনই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না!

চলমান ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে প্রতিটা দল ৯টা করে ম্যাচ খেলবে। বাংলাদেশ দল ইতোমধ্যে ছয়টি ম্যাচ খেলেছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জয় পেলেও নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরেছে। শ্রীলংকা ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছে। সব শেষ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়াই করেই হেরেছে বাংলাদেশ। ৩৮১ রান তাড়ায় বাংলাদেশ তুলতে পারে ৩৩৩/৮। হার ৪৮ রানে। সেঞ্চুরি করেছেন মুশফিকুর রহিম। এখন চলছে হারের হিসাবনিকাশ। সামনে আফগানিস্তান, ভারত ও পাকিস্তানকে মোকাবিলায় অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের পারফরম্যান্স শক্তি হিসেবে কাজ করবে। টাইগারদের তিন ম্যাচেই জয় চাই। তবে ভারত ম্যাচ কঠিন হবে।

সে হিসেবে আফগানিস্তান ও পাকিস্তান দল তুলনামূলক সহজ। আশায় বুক বাঁধছে দেশের ষোলো কোটি মানুষও। আফগানিস্তান আর পাকিস্তানের সঙ্গে তুলনা করলেই স্পষ্ট হয়ে যায়, শক্তি ও সামর্থ্যে বাংলাদেশ এখন অনেক এগিয়ে। ভারত কঠিন প্রতিপক্ষ; কিন্তু বাংলাদেশও টক্করটা দিতে জানে। মাশরাফির নেতৃত্বে দলে থাকা সাকিব, তামিম, মুশফিক, লিটন, মোস্তাফিজ, সৌম্য, রুবেলরা যে কোনো প্রতিপক্ষের জন্যই বড় হুমকি। তার পরও সেমিফাইনালকে দূরের বাতিঘর বলেই মনে হচ্ছে। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ চার দল ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলবে। এখন পর্যন্ত যা অবস্থা, তাতে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ভারত ও ইংল্যান্ডের শেষ চারে খেলার সম্ভাবনা প্রবল।

বাস্তবতার নিরিখে বাংলাদেশের সুযোগ নেই বললেই চলে। তবে কাগজে-কলমে এখনও শেষ চারের রেসে টিকে আছে টাইগাররা। ৬ ম্যাচ শেষে ৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ছয়ে মাশরাফি, সাকিবরা। ইংল্যান্ডকে হারিয়ে পাঁচে উঠে এসেছে শ্রীলংকা। সমর্থকদের মতো মাশরাফিও আশায় বুক বাঁধছেন। বাংলাদেশের অধিনায়ক মনে করেছিলেন, এ পর্যায় পর্যন্ত শীর্ষ দলগুলো কয়েকটি ম্যাচ হারবে, আর তাতে টুর্নামেন্টের গতিপথও পাল্টে যাবে। আদতে এখন পর্যন্ত এমন কিছু ঘটেনি।

সে কারণে এখনই বলে দেওয়া যাচ্ছে, সেমিফাইনাল খেলবে কোন চার দল। শুধু নিজেদের বাকি তিন ম্যাচ জিতলেই হবে না, অন্য দলের পারফরম্যান্সের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে টাইগারদের। ৬ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট অস্ট্রেলিয়ার। তাদের সামনে ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা। ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের কাছে অজিরা হারলেও দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ তারা জিতবে। তখন তাদের পয়েন্ট হবে ১২। ৫ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের পয়েন্ট ৯। তাদের সামনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। কিউইরা যে ফর্মে আছে তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান ম্যাচ তারা জিতবে।

ধরে নিলাম অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের কাছে হারবে। তার পরও তাদের পয়েন্ট হবে ১৩। ছয় ম্যাচে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৮ পয়েন্ট। গতকালই তারা শ্রীলংকার কাছে হেরেছে। তাদের সামনে বাকি থাকল অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও নিউজিল্যান্ড। মরগ্যানের দল ওই তিন ম্যাচের মধ্যে এক থেকে দুটিতে জিততে পারে। তখন তাদের পয়েন্ট হবে ১০ থেকে ১২। বাকি রইল ভারত। কোহলি, ধোনিরা এখন পর্যন্ত ৪ ম্যাচ খেলেছে। তাদের পয়েন্ট ৭। ভারতের সামনে ম্যাচ রয়েছে আরও পাঁচটি-আফগানিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড, বাংলাদেশ ও শ্রীলংকা। এর মধ্যে আফগানিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচ জিতলেই তাদের পয়েন্ট হবে ১৩। ইংল্যান্ড ও বাংলাদেশের মধ্যে আরও একটি ম্যাচ জিতলে ১৫। আর বাংলাদেশ যদি শেষ তিন ম্যাচ জেতে তা হলে পয়েন্ট হবে ১১।

অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে যদি জয় পেত টাইগাররা, তা হলে শেষ চারের রেসে বেশ ভালোভাবেই টিকে থাকত। ওই ম্যাচ হারের পরই মূলত বিশ্বকাপে সেমিতে খেলার স্বপ্নে বড় আঘাত লাগে। তার পরও মানুষ বাঁচে আশায়! সামনে বেশ কিছু ম্যাচ বাকি আছে। শেষ চারের রেসে এগিয়ে থাকা দলগুলোর ম্যাচে হানা দিতে পারে বৃষ্টি। তখন তাদের পয়েন্ট ভাগাভাগি করে নিতে হবে। অনেক যদি-কিন্তু সমীকরণের সুতোয় ঝুলছে এখন বাংলাদেশের সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্ন!

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877