শনিবার, ১৩ Jul ২০২৪, ১০:৪৪ অপরাহ্ন

আফগানদের পঞ্চম হারের ‘স্বাদ’ দিলো ইংলিশরা

আফগানদের পঞ্চম হারের ‘স্বাদ’ দিলো ইংলিশরা

বিশ্বকাপের ২৪তম ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৫০ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরে আসরে টানা পঞ্ম হারের স্বাদ গ্রহণ করলো আফগানিস্তান। ইংল্যান্ডের দেয়া ৩৯৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৪৭ রান করতে সক্ষম হয় আফগানরা। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৬ রানের ইনিংস খেলেন হাসমতউল্লাহ শাহেদী।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করে ইয়ন মরগানের ৭১ বলে ১৪৮, জনি বায়েস্ট্রোর ৯০ ও জো রুটের ৮৮ রানের ওপর ভর করে ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৯৭ রান সংগ্রহ করে ইংল্যান্ড।

মঙ্গলবার ম্যানচেস্টার ওল্ড ট্রাফোর্ডে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় ম্যাচটি শুরু হয়। টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন ইংলিশ অধিনায়ক ইয়ন মরগান।

ব্যাট করতে নেমে ভালো সূচনা করে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। নিয়মিত ওপেনার জেসন রয়ের বাম হ্যামস্ট্রিংয়ে চোটের কারণে ওপেন করতে নামেন জেমস ভিন্স। ওপেনিং জুটিতে ভিন্স-জনি বায়েস্ট্রো মিলে তোলেন ৪৪ রান। ৩১ বলে ২৬ রান করে দৌলত জাদরানের শিকার হয়ে ফেরেন ভিন্স। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে বায়েস্ট্রো- রুট মিলে গড়েন ১২০ রানের জুটি। ১৬৪ রানের মাথায় ৯৯ বলে ৯০ রান করে বায়েস্ট্রো ফেরেন গুলবাদিন নায়েবের শিকার হয়ে। বায়েস্ট্রা আউট হলে ৩ নাম্বার পজিশনে ব্যাট করতে নামেন ইংলিশ অধিনায়ক ইয়ন মরগান। এরপর শুরু হয় আফগানদের উপর দিয়ে মরগান ঝড়। তৃতীয় উইকেট জুটিতে মরগান-রুট মিলে তোলেন ১৮৯ রান। ৪৭তম ওভারের চতুর্থ বলে ৮৮ রান করে গুলবাদিন নায়েবের বলে রহমত শাহের তালুবন্দী হয়ে ফেরেন রুট। অন্যদিকে আফগান বোলারদের উপর দিয়ে একাই ছড়ি ঘোরাতে থাকেন মরগান। বিশেষ করে আফগান লেগস্পিনার রশিদ খানকে যেন বেছে নিয়েছেন এই ইংলিশ। রশিদের সপ্তম ওভারে ৩ ছক্কা হাঁকিয়ে ৫৭ বলে সেঞ্চুরি তুলে নেন মরগান। শেষ পর্যন্ত ওডিআই ক্রিকেট সর্বোচ্চ ১৭ ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড গড়ে ৭১ বলে ১৪৮ রান করেন মরগান। গুলবাদিন নায়েবের তৃতীয় শিকার হয়ে ফেরেন ইংলিশ অধিনায়ক। শেষদিকে মইন আলি অপরাজিত ৯ বলে ৩১ রানের ঝড়ো ইনংসের ওপর ভর করে ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৯৭ রান সংগ্রহ করে ইংল্যান্ড।

এই ম্যাচে বিশ্বকাপের ইতিহাসে এক ম্যাচে সবচেয়ে বেশি রান দেয়ার তালিকায় শীর্ষে উঠে এলেন রশিদ। তার আগে ১৯৮৩ বিশ্বকাপে ১২ ওভারে ১০৫ রান দিয়ে তালিকায় শীর্ষে ছিলেন নিউজিল্যান্ডের পেসার বোলার মার্টিন শ্যাডন। দীর্ঘ ৩৭ বছর পর ২০১৯ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৯ ওভারে ১১০ রান দিয়ে সেই রেকর্ড ভেঙে শীর্ষে উঠে আসলেন আফগান অলরাউন্ডার।

রশিদ-নবীদের ওপর ছক্কা বৃষ্টি ঝরিয়ে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ছক্কা হাঁকানোর নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক ইয়ন মরগান। গেইল, ডি ভিলিয়ার্স ও রোহিত শার্মার ১৬ ছক্কা মারা রেকর্ড ভেঙে ১৭ ছক্কা হাঁকিয়ে নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন এই ইংলিশ অধিনায়ক।

আফগান বোলারদের মধ্যে গুলবাদিন নায়েব ও দৌলত জাদরান ৩টি করে উইকেট শিকার করেন।

৩৯৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভার ও জোফরা আর্চারের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলে বোল্ড হয়ে শূন্য রানে ফেরেন আফগান ওপেনার নুর আলি জাদরান। বাজে পারফরম্যান্সের কারণে দলে জায়গা পাননি হজরতউল্লাহ জাজাই। বড় লক্ষ্য তাড়া করতে ওপেনিংয়ে ব্যাট করতে নামেন অধিনায়ক গুলবাদিন নায়েব। ২৮ বলে ৩৭ রান করে ঝড়ো ইনিংসের আভাস দিয়ে মার্ক উডের করা বলে জস বাটলারের তালুবন্দী হয়ে দলীয় ৫২ রানে ফেরেন গুলবাদিন। তার আউটের পর হাসমতউল্লাহ শাহেদী ও ওয়ানডাউনে ব্যাট করতে নামা রহমত শাহ চাপে পড়া আফগানকে টেনে তোলার দায়িত্ব নিয়ে দেখে-শুনে ব্যাট করা শুরু করেন। কিন্তু দলীয় ১০৪ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৪৬ রান করে রহমত শাহ ফেরেন আদিল রশিদের শিকার হয়ে। হাসমতউল্লাহ ও রহমত শাহের জুটি থেকে আসে ৯৪ রান। এরপর আসগর আফগানকে সঙ্গে নিয়ে হাসমতউল্লাহ তুলে নেন ক্যারিয়ারের অষ্টম অর্ধশতক। ৪৮ বলে ৪৪ রান করে রশিদের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরে যান আসগর। আসগর আউট হলে বেশিক্ষণ টিকে থাকতে পারেননি হাসমতউল্লাহও। ১০০ বল খেলে ৭৬ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস খেলে আর্চারের শিকার হন। শেষ দিকে আর কোনো ব্যাটসম্যান ভালো করতে পারেননি। দুই অঙ্কের ঘরে যেতে পেরেছেন শুধু নাজিবুল্লাহ জাদরান। নাজিবুল্লাহ ১৩ ও রশিদ খানের ব্যাট থেকে আসে ৮ রান। ফলে হাতে দুই উইকেট রেখে ৫০ ওভারে ২৪৭ রানে থেমে যায় আফগানদের ইনিংস। আর ইংল্যান্ড জয় পায় ১৫০ রানের বিশাল ব্যাবধানে।

ইংল্যান্ডের বোলারদের মধ্যে জোফরা আর্চার ও আদিল রশিদ ৩টি এবং মর্ক উড ২টি উইকেট শিকার করেন।

১৪৮ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন ইংল্যান্ড দলের অধিনায়ক ইয়ন মরগান।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877