শনিবার, ১৩ Jul ২০২৪, ০৯:৪০ অপরাহ্ন

ছোট মাঠে বাংলাদেশেরও সুবিধা

ছোট মাঠে বাংলাদেশেরও সুবিধা

টনটনের মাঠটি পাহাড়ের কোলঘেঁষে। অমন বড়ও নয় আবার। আগের দুটি ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা বড় শটের জন্য অপেক্ষা করেছেন। সফলও হয়েছেন তারা। এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরা বড় শট খেলে অভ্যস্ত। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের দুনিয়ায় ক্যারিবীয়রা রাজা। বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি মনে করেন, ছোট মাঠ হওয়ায় বাংলাদেশের জন্য বরং ভালোই হয়েছে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়রা বড় মাঠেও ছক্কা হাঁকায়। মাঠ বড় বা ছোট কোনো বিষয়ই না। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরাও এই সুবিধা নিতে পারে। মাঠ বড় হলে আরও সমস্যা হতো বলে মনে করেন প্রাণের অধিনায়ক। বিশ্বকাপে টিকে থাকার ম্যাচ। ৪ ম্যাচ থেকে ৩ পয়েন্ট এসেছে। হাতে এখন ৫ ম্যাচ রয়েছে। আর বাংলাদেশের অর্জন ৩ পয়েন্ট। মাশরাফি আশাবাদী। শুধু বাংলাদেশ নয়, ওয়েস্ট ইন্ডিজও ৪ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট পেয়েছে। দুটি দলের জন্যই এই ম্যাচটি বিশ্বকাপে টিকে থাকার। এই ম্যাচে হেরে বসলে ভার্চুয়ালি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের আশা মলিন হয়ে যাবে।

মাশরাফি গতকাল সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেছেন। তিনি আশাবাদী মানুষ। এমন পরিস্থিতি জীবনে অনেক এসেছে। তিনি বলেছেন, ‘দুটি দলই একই পরিস্থিতিতে আছে। আমাদের নিজের ওপর আস্থা রাখতে হবে। আরও কয়েক ম্যাচ আছে। আগের তিন ম্যাচে পয়েন্ট হারিয়েছি। ফলে এই ম্যাচটি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে গেছে। আশা করি আগামীকাল ভালো খেলব।’ ওয়েস্ট ইন্ডিজের ফাস্ট বোলার ভালো। আবার তাদের ব্যাটসম্যানরা পেস ভালো খেলে। তবে ক্যারিবীয়দের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান আছে কয়েকজন। সেজন্য মিরাজকে রাখার পক্ষে মাশরাফি।

এ ব্যাপারে বলেছেন, ‘আমাদের অফ স্পিনাররা ওদের সঙ্গে ভালো করেছে। মেহেদি ভালো বলই করছে। বিশ্বকাপেও ভালো করেছে। বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষেও সে ভালো করেছে। সেজন্য এটা আমরা ভেবেছি। আর মাঠটি যেহেতু ছোট সেটা নিয়ে ভেবেছি। ছোট মাঠ আবার একদিক দিয়ে আমাদের জন্য ভালো। সবার সমান সুযোগ। মুশফিকুর রহিম সুস্থ আছেন-জানালেন ক্যাপ্টেন। আর সাকিবও ছন্দে ছিলেন অনুশীলনে। দলের পরিবর্তনের ইঙ্গিত দেননি। তবে সেটা টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে বসে করা হবে। মাশরাফি তখনও টিম মিটিং করেননি।

মুশফিকের ব্যাপার আর ৪ পেসার নিয়ে বলেছেন, ‘প্রথমে বলব-আমরা সিদ্ধান্ত নেইনি এখনো। মুশফিক ভালো আছে। কোনো সমস্যা নেই। স্ক্যান ও এক্সরে করানো হয়েছে। এখনো ফাইনাল কল হতে পারে পরিবর্তনে। ব্যাটসম্যান কমিয়ে ফাস্ট বোলার নেওয়া সব সময় ভালো হয় না। যে সিদ্ধান্তই ম্যানেজমেন্ট নেবে, আমরা তা মেনে নেব।

মাশরাফি আরও জানান, সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের রেকর্ড ভালো। তবে তাই বলে আকাশে ওড়ার সুযোগ নেই। এটা বিশ্বকাপ। মাশরাফি নিজেদের সেরাটা আশা করছেন। মাশরাফি বলেন, ‘আমাদের বোলিং ভালো হয়েছে সর্বশেষ কয়েকটি সিরিজে। আমি সেজন্য আত্মবিশ্বাসী। আশা করি বোলাররা ভালো করবে।’ সেমিফাইনাল নিয়ে ভাবছেন না মাশরাফি।

তিনি বলেন, ‘আমাদের হাতে ৫টি ম্যাচ রয়েছে। আমরা এখনি ভাবছি না। প্রতিটি ম্যাচ ধরে ধরে এগিয়ে যেতে হবে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হারায় অনেক ক্ষতি হয়েছে। বিশ্বকাপে ইতিবাচক থাকতে হবে। প্রতিটি খেলায় পারফরম্যান্স ওঠা-নামা করবে। তবে বিশ্বাস থাকতে হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভয়ঙ্কর ব্যাটসম্যান রয়েছেন। মাশরাফি জানেন রাসেল সম্পর্কে।

তিনি বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটিং শক্তিশালী। ওয়ানডে ক্রিকেটে সফল হলে বিপদ। ওরা টি-টোয়েন্টি মেজাজে খেলে। আমাদের মাথা ঠাণ্ডা রাখতে হবে। তারা যদি প্রচুর শট খেলে তা হলে আমাদের সুযোগও আসবে। তাদের বোলিং অ্যাটাক আমরা খেলেছি। সফল হলেও আমরা রিল্যাক্স নই। কথাটি মাথায় রেখে এগিয়ে যেতে হবে। ওরা যেন সিরিয়াস ড্যামেজ না করতে পারে, সেটি খেয়াল রাখতে হবে।

রুবেলের অন্তর্ভুক্তি নিয়ে মাশরাফি রহস্য করেছেন। তিনি সরাসরি কিছু বলেননি। তিনি আলোচনা করেননি এখনো। তিনি বলেন, ‘আমি ম্যানেজমেন্টের অংশ হলেও আলোচনা করব। সবার কথা ধরতে হবে। আমি এখনই কিছু বলতে পারছি না।

  

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877