বৃহস্পতিবার, ২৫ Jul ২০২৪, ০৬:৪২ পূর্বাহ্ন

বিড়ম্বনায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন…..

বিড়ম্বনায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন…..

স্বদেশ ডেস্ক: প্রায় ২৫ বছর আগের একটি প্রবন্ধ। আর সেটাই এ বারবিপাকে ফেলল ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে। শুক্রবার ব্রিটিশ রেডিও এলবিসি-তে এক সাক্ষাৎকার দেন। সেখানে ওই পুরনো প্রবন্ধের জেরেই উঠে এল তাঁর ব্যক্তিগত জীবন, সন্তান প্রসঙ্গ।
১৯৯৫ সালে একটি প্রবন্ধ লেখেন বরিস জনসন। সেখানে তিনি লিখেছিলেন, ‘সিঙ্গল মাদারদের সন্তানরা সঠিক ভাবে প্রতিপালিত হয় না, অজ্ঞ, আগ্রাসী হন’।
এলবিসি রেডিও-র সাক্ষাৎকারে শ্রোতাদেরও ফোনের মাধ্যমে সরাসরি ব্রিটিশ প্রাইম মিনিস্টারের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ ছিল। সেখানেই ফোন করেন রুথ নামে এক মহিলা। যিনি বরিসের ১৯৯৫ সালের প্রবন্ধটির কথা তুলে বলেন, ‘তিনিও একজন সিঙ্গল মাদার। তাঁর সন্তানদের প্রতিষ্ঠিত করেছেন’। রুথ আরও অভিযোগ করেন, যেখানে আমাদের মতো সিঙ্গল মাদারদের বরিস সমালোচনা করে আনন্দ পান, সেখানে নিজের পরিবার সম্পর্কে কেন খোলাখুলি কিছু জানান না?
রুথের অভিযোগের উত্তর দিতে গিয়ে বরিসকে বেশ অস্বস্তিতেই পড়তে। পরিস্থিতি কিছুটা সামাল দিয়ে তিনি বলেন, ‘তাঁর কোনও রকম অশ্রদ্ধা নেই (রুথের প্রতি)। আর এটি একটি পুরনো মন্তব্য, যখন তিনি রাজনীতিতে আসেননি’। রুথ, বরিসের পরিবারের প্রসঙ্গে টেনে আনলেও ব্রিটিশ প্রাইম মিনিস্টার সে প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান, কোনও মন্তব্যই করেননি। বরিস জনসনের ব্যক্তিগত জীবন বার বার খবরে উঠে এলেই সে প্রসঙ্গে তিনি খোলা খুলি বিশেষ কিছু বলেন না।
বরিসের প্রথম বিয়ে ১৯৮৭ সালে অ্যালিগ্রা মস্টিন-ওয়েনের সঙ্গে। ১৯৯৩ সালে তাঁদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। বিচ্ছেদের ১২ দিন পর মারিনা হুইলারকে বিয়ে করেন। এই বিয়ের পাঁচ সপ্তাহ পর মারিনা-বরিসের প্রথম সন্তান জন্ম নেয়। বরিস ও মারিনার মোট চারটি সন্তান,দুই মেয়ে ও দুই ছেলে। ২০১৮ সালে বরিস-মারিনারও বিচ্ছেদ হয়ে যায়। তাঁর স্ত্রী একাধিকাবার বরিসের বিরুদ্ধে ব্যাভিচারের অভিযোগ তুলেছেন।
বরিসের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল মার্কিন মহিলা ব্যবসায়ী জেনিফার আরকুইরির সঙ্গেও নাকি তাঁর প্রেম ছিল। সম্প্রতি জেনিফার এক টিভিতে সাক্ষাত্কারে বলে ফেলেন, বরিস তাঁকে বলেছেন, তাঁর পাঁচ সন্তান রয়েছে।
বরিস সম্পর্কে গুজব রয়েছে, এক বান্ধবী ও তাঁর এক কন্যা সন্তান রয়েছে। তবে সে সম্পর্কে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেন বরিস। রেডিও-র সাক্ষাৎকারে বরিসের বর্তমান বান্ধবী একত্রিশ বছর বয়সী ক্যারি সাইমন্ডসের প্রসঙ্গও উঠে আসে। এই বছর গ্রীষ্মকাল থেকে ক্যারি ডাউনিং স্ট্রিটের বাসিন্দা।সে প্রসঙ্গ তুলে রেডিও-র সাক্ষাত্কারী প্রশ্ন করেন, ক্যারি ও তাঁর সন্তান নেওয়ার পরিকল্পনা আছে কিনা? বসির বলেন, তিনি এ প্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করতে চান না।
এই সাক্ষাৎকারের কিছু কিছু ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হয়েছে। তার মধ্যে রুথের সঙ্গে কথোপকথনটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877