রবিবার, ১৪ Jul ২০২৪, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন

স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ, গ্রাম্য সালিশে বিয়ে তারপর…..

স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ, গ্রাম্য সালিশে বিয়ে তারপর…..

স্বদেশ ডেস্ক:

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় ৭ শ্রেণির ছাত্রীকে কোচিং সেন্টারের শিক্ষক লম্পট আরিফুল ইসলাম বিয়ে করার লোভ দেখিয়ে একধিকবার ধর্ষন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ধর্ষিতার পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের পুঠিয়ারপাড় গ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ৭ম শ্রেণি পডুয়া কন্যা স্থানীয় মা মঞ্জিল প্রাইভেট কোচিং সেন্টারের শিক্ষক আরিফুল ইসলামের কাছে গত ২ বছর যাবৎ প্রাইভেট পড়ে আসছিল। চলমান সময়ে লম্পট শিক্ষক আরিফুল ইসলাম বিভিন্ন সময়ে ছলনা দিয়া ওই কিশোরীকে ফুসলিয়ে বিয়ে করার আশ্বাসে নিয়মিত ভাবে ধর্ষনণ করে আসছিল। বিষয়টি মেয়ের বাবা টের পেয়ে প্রথমে এলাকাবাসীকে জানায়। এ ঘটনায় স্থানীয় মাতাব্বররা সালিশ বৈঠকে লম্পট আরিফুল ইসলামকে অপরাধী সাব্যস্ত করে ওই কিশোরীর সাথে রেজিট্রি কাবিন না করেই মৌলবী দিয়ে বিয়ে পরিয়ে দেন। ওই রাতেই শালিশের সভাপতি মিলন মিয়া লম্পট স্বামী আরিফুলের হাতে ধর্ষিতাকে তুলে দেয়। এ সময় আরিফুলের বাবা আঃ জলিল, আরিফুলের বড় ভাই আনিছ ও মাতা আনোয়ারা বেগম সালিশ বৈঠক থেকে পুত্রবধূকে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসে।

ধর্ষিতা জানায় বিয়ের রাতেও তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। একদিন পর লম্পট স্বামী ঢাকায় কাজের কথা বলে এলাকা ছেড়ে নিরুদ্দেশ হয়। সুযোগ সন্ধানী লম্পট আরিফুলের বাবা-মা ও বড় ভাই ধর্ষিতার উপর অমানবিক শারিরিক নির্যাতন চালিয়ে আশংকাজনক অবস্থায় তার বাবার বাড়ীতে পাঠিয়ে দেয়। বিষয়টি এলাকায় টক অব দ্যা টাউনে পরিণত হয়েছে।

অপর দিকে ধর্ষিতার বাবা মোফাজ্জল হোসেন ইউপি চেয়ারম্যান সামস উদ্দিন সহ গ্রামবাশীকে জানালে তারা আইনের আশ্রয় নেয়ার পরামর্শ দেয়। ধর্ষিতা বাদী হয়ে বিঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-২ জামালপুরে মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ অব ইনভেষ্টিগেশন (পিবিআই) জামালপুর এস আই শাখাওয়াত হোসেন শাহিন মামলাটি তদন্ত করছেন।

ধর্ষিতার বাবা জানান, আমি একজন হত দরিদ্র দিন মজুর বলে কেউ বিচার করল না। আমি কি এর বিচার পাব না?
অপর দিকে লম্পট আরিফুলের বাবা আঃ জলিল জানান ছেলে আরিফুল কোথায় গেছে জানি না। তাকে  খোঁজাখুজি করছি। ছেলের সন্ধান পাওয়া গেলে পুত্রবধুূঁমাদের বাড়ীতে নিয়ে আসব। এলাকার কতিপয় প্রত্যক্ষদর্শী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সর্তে জানান, স্থানীয় কতিপয় মাতাব্বর অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে রেজিট্রি কাবিন ছাড়াই এলাকার মৌলবী দিয়ে জোর পূর্বক এ বিয়ে পড়িয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877