বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৫৬ অপরাহ্ন

দি মারিয়াকে পরিবারসহ হত্যার হুমকি

দি মারিয়াকে পরিবারসহ হত্যার হুমকি

স্বদেশ ডেস্ক

আর্জেন্টিনার হয়ে লিওনেল মেসির মতো সম্ভাব্য সব ট্রফি জিতেছেন আনহেল দি মারিয়া। ইউরোপের ফুটবলেও বাজিমাত করেছেন এই অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। তবে তারকা এ ফুটবলার ক্যারিয়ারের শেষ দিকে নিজ দেশের ক্লাব রোজারিও সেন্ত্রালে ফিরতে পারেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। কিন্তু সেই রোজারিওতেই তাকে পরিবারসহকে হত্যার হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। একটি চিরকুটে বার্তা পাঠিয়ে এই তারকাকে রোজারিওতে ফিরতে নিষেধ করা হয়েছে।

এর আগে দি মারিয়া ২০০৫ সালে রোজারিও সেন্ত্রালের হয়ে পেশাদার ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। এই ক্লাব থেকেই ইউরোপে পাড়ি জমান তিনি। পর্তুগালের ক্লাব বেনফিকা থেকে রিয়াল মাদ্রিদ, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, পিএসজি, জুভেন্টাস হয়ে গত জুলাইয়ে ফের বেনফিকায় ফেরেন তিনি।

৩৬ বছর বয়সী তারকার বেনফিকার সঙ্গে চুক্তি আছে আগামী জুন পর্যন্ত। এরপর তিনি রোজারিও সেন্ত্রালে ফিরতে পারেন বলে গুঞ্জন আছে।

তবে দি মারিয়া আর্জেন্টিনায় গেলে যেখানে থাকেন, রোজারিওর সান্তা ফে প্রদেশের সেই বাড়ির দরজায় সোমবার ভোরে কালো প্লাস্টিকের একটি ব্যাগ ছুড়ে দেওয়া হয় গাড়ি থেকে। সান্তা ফে পুলিশ যেটির তদন্ত শুরু করেছে।

আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম টিওয়াইসি স্পোর্টসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই ব্যাগের ভেতর চিরকুটে লেখা ছিল, ‘আপনার ছেলে আনহেলকে বলুন, যেন রোজারিওতে আর ফিরে না আসে, নতুবা আমরা পরিবারের একজন সদস্যকে মেরে ফেলব। এমনকি (মাক্সিমিলিয়ানো) পুয়ারোও (সান্তা ফের গভর্নর) তোমাকে বাঁচাতে পারবে না।’

এদিকে রোজারিওতে মাদক কারবারিদের সহিংসতা বেড়ে যাওয়ায় পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে গত সপ্তাহে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন দি মারিয়া। ইএসপিএনকে বলেছিলেন, বিষয়টি ভবিষ্যতে তার রোজারিও সেন্ত্রালে ফেরার ক্ষেত্রে প্রভাবিত করতে পারে। তিনি বলেছিলেন, ‘আমার বাবা-মা এবং বোনেরা সেখানে আছে, যা ঘটছে তা আমাকে প্রভাবিত করে, আমাকে মর্মাহত করে।’

দি মারিয়া বর্তমানে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের হয়ে যুক্তরাষ্ট্র সফরে আছেন। তবে চিরকুটে হুমকির ব্যাপারে এখনও কোনো মন্তব্য করেননি বিশ্বকাপ জয়ী এই ফুটবলার।

গত বছর হুমকি দেওয়া হয়েছিল লিওনেল মেসিকেও। মোটরসাইকেলে আসা দুজন ব্যক্তি মেসির স্ত্রী আন্তোনেল্লা রোকুস্সোর পরিবারের মালিকানাধীন একটি সুপারমার্কেটে এসে গুলি ছোড়ে এবং একটি চিরকুট রেখে যায় দোকানের দরজায়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877