শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ০৯:৪০ পূর্বাহ্ন

ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলপমেন্ট আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটির পথমেলা

ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলপমেন্ট আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটির পথমেলা

স্বদেশ রিপোর্ট ॥ দূরন্ত বসন্ত এসেছে শীতান্ত, বছরের শেষ পথমেলার আয়োজনে, মানুষ মানুষের জন্যে, মন্ত্রে উদ্বীপ্ত হয়ে ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ভেডলপমেন্ট আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটির সাহার্যার্থে প্রতিবারের মত এবারও গত ২৯ শে সেপ্টেম্বর রোজ রবিবার জ্যাকসন হাইটস পথমেলার আয়োজন করে।
প্রথমে পথমেলার প্রারম্ভে দুইদেশের অর্থাৎ আমেরিকা এবং বাংলােেদশর জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে উদ্বোধনী কার্যক্রম আরম্ভ হয়। পথমেলা উদ্যাপন কমিটির আহ্বায়ক জনাব গোলাম সরোয়ার খান বাবু এবং সদস্য সচিব ফাহাদ সোলায়মানের যৌথ সঞ্চালনায় সভার কার্যক্রম আরম্ভ হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলমেন্টের সভাপতি শাহ্ শহীদুল হক। এর পরে পর্যায়ক্রমে সভাপতির অনুমোদনক্রমে আগত অতিথিবৃন্দ এবং কার্যকরি পরিষদের কর্মকর্তাগণকে মঞ্ছে আমন্ত্রণ জানানো হয়। কম্যুনিটির বিশিষ্ট নেতৃবর্গের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এটর্নী মঈন চৌধুরী, ডিষ্ট্রিক্ট লিডার এট লার্জ, কম্যুনিটি বোর্ড মেম্বার শাহ নেওয়াজ। বাংলাদেশ সোসাইটির বর্তমান কার্যকরি পরিষদের সম্মানিত সভাপতি কামাল আহমেদ, সহ সভাপতি আব্দুর রহিম হাওলাদার, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী, আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটির সিনিয়র ম্যানেজার ফর কম্যুনিটি ডেভলপমেন্টের কর্ণধার রবার্ট ফক্স, বিশিষ্ট রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী মাকসুদুর রহমান, কম্যুনিটি এক্টিভিষ্ট এবং বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মনি হোম কেয়ারের প্রেসিডেন্ট মনি রিফাত সুলতানা, রিয়েলটর কামরুজ্জামান বাচ্চু, কার্যকরি পরিষদের সদস্যবর্গের সম্মানিত সিনিয়র সহ সভাপতি আকতার হোসেন, সহ সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আকিকুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদিকা বাবলী হক, প্রচার সম্পাদিকা ফারহানা আমান, অর্থ সম্পাদিকা শামসুন নাহার শেখ, যুব বিষয়ক সম্পাদিকা সাবরিন শেখ প্রমুখ।
প্রথমে সংগঠনের সভাপতি শাহ শহীদুল হক (সাঈদ) আগত অতিথিদের উদ্দেশ্যে পথমেলার আয়োজনের মর্মার্থে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্যে বিগতদিনের পথমেলা এবং এই বৎসরের গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, আমাদের পথমেলা সমাজের আর্ত নিপিড়িত মানুষের কল্যাণে উৎসর্গ হয়ে থাকে। উদাহারণ স্বরূপ বাংলাদেশের প্রলংয়ঙ্কায়ী সিড্রে যখন বিপুল সংখ্যক মানব জীবন, ঘরবাড়ী, পশু পাখির প্রাণনাশ ঘটে তখন আমরা উড্ সাইডের ৫৭ ষ্ট্রিটে পথমেলার মাধ্যমে লভ্যাংশ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে বাংলাদেশ কনস্যূলেট জেনারেল অব নিউইয়র্ক এর মাধ্যমে ফেলে আসা মাতৃভূমির কল্যাণে নগদ অর্থ প্রেরণ করি, তেমনি পুরান ঢাকার নিমতলীর ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের, রানা প্লাজার অনাহুত বিধ্বস্ত দালানের ধ্বংসলীলায়, হতাহত শ্রমিকদের সাহাযার্থে আমরা অনুরূপ পথমেলার মাধ্যমে সাহার্য্য প্রেরণ করেছি। তাছাড়া আমেরিকায় লুজিয়ানাতে হ্যারিকেনের আঘাতে নিরস্ত্র মানুষের সাহার্যার্থে এস. টিভির কর্ণধার ফাতিনাজ ফিরোজের উদ্দীপনায় এবং প্রয়াত বিশিষ্ট ব্যবসায়ী দীন এম রানার পৃষ্টপোষকায় বিপুল পরিমানে সাহায্য সহযোগিতা করেছি। আজকের পথ মেলা আমরা আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটির সাহাযার্থে উৎসর্গ করেছি।
এই মহৎ উদ্যোগকে স্পন্সর করেছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক আবদুল কাদির মিঞা, মনি হোম কেয়ারের প্রসিডেন্ট মনি, কেয়ার কুইনের কর্ণধার ফরিদা ইয়াসমীন, এটর্নী মঈন চৌধুরী, ডাঃ শামীম আহ্মেদ, ইমিগ্রেশন এক্সপার্ট বিশিষ্ট সমাজসেবক মোহাম্মদ এন. মজুমদার, নিউইয়র্ক ইন্সুরেন্স এর কর্ণধার শাহ্ নেওয়াজ, রিফাৎ সুলতানা, আব্দুর রহীম হাওলাদার, মোহাম্মদ আলী, খুরশীদ আনোয়ার, বাবলূ প্রমুখ।
তিনি মেলা কমিটির আহ্বায়ক জনাব গোলাম সরওয়ার বাবু এবং সদস্য সচিব ফাহাদ সোলায়মানের অক্লান্ত পরিশ্রম ও সার্বিক সাহার্য্য সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন । অতপর সকল অতিথিবর্গ, ব্যবসায়ী মহল, সংগঠনের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। বিশিষ্ট অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন এটর্নী মঈন চৌধুরী, কম্যুনিটি বোর্ড মেম্বার জোয়ানা রিড, নিউইয়র্ক ইন্সুরেন্স এর কর্ণধার সফল ব্যবসায়ী শাহ্ নেওয়াজ।
আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির কম্যুনিটি ডেভলপমেন্টের সিনিয়র ম্যানেজার বরার্ট ফক্স বলেন, ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলপমেন্টের কর্ণধার আমার বন্ধুই নহেন তিনি গোটা বিশ্বের মানবতার বন্ধু। আমাদের কার্যক্রমকে এ সংগঠনটি যেভাবে সার্বিকভাবে গণ মানুষের কল্যাণে উৎসর্গ করেছেন, শ্রম দিয়েছেন তাতে আমি গর্বিত।
যারা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের ভয় পাওয়ার কিছু নেই, আমরা আপনাদের বিনা মূল্যে সার্বিকভাবে সাহার্য্য, সহযোগিতা করে যাব। ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলপমেন্ট আমাদের সহযোগী সংগঠণ আপনারা তাদের মাধ্যমে অথবা সরাসরি আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। ভবিষ্যতে পৃথিবী থেকে ক্যান্সাার নিমুর্ল হয়ে যাবে। আমি জনাব শাহ্ শহীদুল হককে মানব কল্যাণের অগ্রদূত হিসেবে আখ্যা দিচ্ছি। আমি এ সংগঠনের ভবিষ্যতে মঙ্গল কামনা করি।
সরকারী হাই অফিসিয়ালদের মধ্যে প্রশংসা মূলক বক্তব্য পেশ করেন স্টেট সিনেটর জন লু, কম্যুনিটি বোর্ড-৩ এর ডিষ্ট্রিক্ট ম্যানেজার জুয়ান বিয়েড। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আকিকুর রহমান বলেন, উত্তর আমেরিকাতে আমরা ব্যতিক্রম, আমরা দেশের ও আত্ম মানবতার সেবায় কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছি। প্রকৃতভাবে অথচ বাংলাদেশ সরকার আত্মীয় স্বজনদের ডেকে পুরস্কার প্রদান করেন, তিনি বলেন আমরা এওয়ার্ড চাই না, আমরা স্বীকৃতি চাই, তিনি বাংলাদেশ কনসুলেটকে এ ব্যাপারে স্বচ্ছতার আহ্বান জানান। তিনি সকল অতিথি এবং স্পন্সরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন, পাশাপাশি যারা স্পন্সর করে সাহার্য্যরে আশ্বাস দিয়ে ফোন বন্ধ রাখেন তাদের এহেন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করেন।
ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলপমেন্টের প্রধান আকর্ষণ ছিল স্থানীয় কংগ্রেসওমেন আলেক জান্ডার ওয়াকিসিও কটের্জ, বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের সর্ব কনিষ্ঠ যিনি কংগ্রেসম্যান যোসেফ ক্রাউলীকে বিপুল ভোটে ধরাশায়ী করে গত নির্বাচনের বিজয়ের মালা ছিনিয়ে নেন। তিনি সন্ধ্যা ৭ টা অবধি পথমেলা পরিদর্শন করেন বিপুল সংখ্যক উৎসুক জনতার করতালির মাধ্যমে তিনি আবেগে আপ্লুত হন। প্রতিটি স্টল পরিদর্শন এবং সাধারণ জনগণের মাঝে কুশল বিনিময়ের মাধ্যমে পথমেলা কমিটির আহ্বায়ক গোলাম সরওয়ার বাবু, ফাহাদ সোলায়মান এবং সংগঠনের কর্ণধার শাহ্ শহীদুল হক তাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রীকে মঞ্চে আহ্বায়ন করেন, এ সময় মঞ্চ এবং সমবেত জনতা আলেক জান্ডার ওকাসিও দীর্ঘজীবি হও বলে শ্লোগানে মুখরিত করেন। তাদের মধ্যে যোগ দেন জ্যাকসন হাইট্স, এলমহার্ষ্ট, উডসাইডের আমেরিকান জনগণ, কংগ্রেসওমেন আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়েন। অতপর গোলাম সরওয়ার খান বাবু এবং ফাহাদ সোলায়মানের যৌথ সঞ্চালনায় সভার কাজ আরম্ভ হয়।
প্রথমে সংগঠনের কর্ণধার শাহ্ শহীদুল হক কংগ্রেসওমেনকে স্বাগত জানিয়ে তার দীর্ঘ বক্তব্য পেশ করেন, তিনি বলেন মাননীয় কংগ্রেস ওমেন, গোটা বিশ্বের মানব কল্যাণে আপনার সৎ সাহস, ন্যায় নীতি বোধ, বাঘের ন্যায় গর্জন পৃথিবীর অসহায় মানুষকে দেয় আলোর দিশারী, আপনি আমাদের অভিবাদন গ্রহণ করুন, আমি আপনার মধ্যে বিশ্বের সকল বঞ্চিত মানুষের অধিকার রক্ষণের অগ্রদূত হিসাবে জল, জল নক্ষত্রের ছোয়া পাই।
আমি অত্যন্ত আনন্দিত, অন্যদিকে হৃদয়বিদারক, স্বীকাকারীর, ধনুর আঘাতে রক্তে রঞ্জিত, এজন্যে আনন্দিত যে, সাম্প্রাতিক আমাজন নিউইয়র্কের কুইন্সে তাদের কর্পোরেট অফিস স্থাপনের প্রচেষ্টাকে আপনার গতিশীল নেতৃত্বের মাধ্যমে উড়িয়ে দিয়েছেন, যার ফলে আমাদের মত স্বল্প আয়ের জনগণ কুইন্সে বসবাস করতে পারছে, আমি আপনাকে ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলমেন্টের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি, আপনি ইমিগ্রেশন, ডিপোর্টেশন, এফবোডবল হাউজিং সহ আমেরিকানদের দাবী নিয়ে সোচ্চার ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, আপনি আমাদের আশা এবং ভরসার বাহন। আল্লাহর অশেষ রহমতে আপনি কৃতকার্য হবেন। কিন্তু আমি অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে আপনার দরবারে আপিল করছি যে, আমার পবিত্র মাতৃভূমি বাংলাদেশ আজ কঠিন সমস্যার সম্মুখীন, মিয়ানমনার সরকার বাংলাদেশের উপর তরবারীর আঘাত হানছে, প্রায় এক মিলিন মানুষকে গৃহহারা করে বাংলাদেশে পুশব্যাক করা হয়েছে, অগণিত যুবতী, নারীদের সম্ভ্রমহানি হয়েছে, রোহিঙ্গাদেরকে জলন্ত আগুনে পুড়িয়ে মারছে, মিয়ানমার সেনা বাহিনী, এ জেনোসাইডের তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি। আমরা আপনার মাধ্যমে হোয়াইট হাউজে মিয়ানমার সরকারের বিরুদ্ধে কংগ্রেশনাল হিয়ারিং দাবী করছি।
দ্বিতীয়তঃ ট্রাম্প এডমিনিস্ট্রেশন যেভাবে আশ্রয়হীন ইমিগ্রেন্টদেরকে ডিপোর্ট করছে তা যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান বহির্ভূত আমি আশা করব আপনি এর প্রতিকার করে অসংবিধানিক ডিপোর্টেশন বন্ধ করার দৃঢ় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ।
এরপরে কংগ্রেসওমেনকে উদ্দেশ্য করে তার জীবন বৃত্তান্ত এবং কার্যপ্রণালী পাঠ করে শুনান শেখ সাবরীন। কংগ্রেসওমেন তার বক্তব্যে অভিভূত হন। শেষে কংগ্রেসওমেন তার দীর্ঘ বক্ততার মাধ্যমে ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলপমেন্ট এর সকল কর্মকর্তাগণসহ উপস্থিত সকল জনতাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য আরম্ভ করেন। তিনি বলেন আমি আপনাদের নেতা হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের জন্য কাজ করে যাচ্ছি, যাতে করে স্বল্প আয়ের লোকজন সহজ কিস্তিতে হাউজিং এ বসবাস করতে পারেন। আমি আমার জন্য জনগণের শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে বিশ্বাসী, আমি বিশ্বাস করি যুক্তরাষ্ট্রের জনগণ সকলেই সমান, তেমনি করে যারা এদেশে নতুন ভাবে বসবাস করছেন তারাও যেন বঞ্চিত না হয়, সমান সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারে সেজন্য আমি সদা সর্বদা কাজ করছি। আমি হাউজিং ভাড়া যাতে অধিকহারে বৃদ্ধি না পায়, সোস্যাল সিকিউরিটি, ছাত্র ছাত্রীদের সুশিক্ষার ব্যবস্থা প্রভৃতি উন্নয়নে বন্ধ পরিকর। অতঃপর ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইট্স ডেভলপমেন্ট এর পক্ষ থেকে কংগ্রেসওমেনকে সম্মানসূচক প্লাক প্রদান করা হয়। এছাড়া দেশে এবং প্রবাসে বিভিন্ন খাতে অবদানের জন্য সাইটেসন গ্রহণ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা খুরশীদ আনোয়ার বাবলু, রিফাত সুলতানা, ডাঃ শামীম আহমেদ, সৈয়দ আকিকুর রহমান, শাহ্ শহীদুল হক, মনি হোম কেয়ারের পরিচালক মনি।
সর্বশেষে লটারী বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার প্রদান করা হয়। এতে ১ম পুরস্কার স্পন্সর করেন ডিজিটাল ওয়ান টুরস এন্ড ট্রাভেল্স, ২য় পুরস্কার ডায়মন্ডের রিং স্পন্সর করেছেন সোনা চান্দি, তৃতীয় পুরস্কার ল্যাপটব স্পন্সর করেছেন এনওয়াই ইন্সুরেন্স, ৪র্থ পুরস্কার আড়ংয়ের শাড়ী স্পন্সর করেছেন আড়ং। রাত অবধি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পরে সভার কাজ শেষ করেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2019 shawdeshnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
themebashawdesh4547877